১৮ আগস্ট, আজকের দিনটাকে স্মরণ করে মুর্শিদাবাদবাসীদের গর্বের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা উচিত নয় ??

প্রিয় মুর্শিদাবাদ জেলা, শুভ অন্তর্ভুক্ত দিবস !!


হ্যাঁ আজ ১৮-ই আগস্ট পতাকা হাতে তুলে স্মরণ করছি আজকের দিনটাকে। কারণ–

১৯৪৭ সালের ১৫-ই আগস্ট ভারতবর্ষ স্বাধীন হলেও 'মুর্শিদাবাদ' জেলা স্বাধীন হয়নি। দেশ-ভাগের ফলে মুর্শিদাবাদ জেলাকে ১৫-ই আগস্ট পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। বহরমপুর স্কোয়ার ময়দানে সেই সময় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পাকিস্তানের পতাকা উত্তোলন করা হয়।


১৫ তারিখ থেকে ১৭ তারিখ এই তিনদিন মুর্শিদাবাদ জেলা ছিল পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত। সেসময়কার অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং সাধারণ মানুষেরা এর প্রতিবাদ করে। তাছাড়া শাসন করাও সমস্যা হতো। তাই এরপর বিনিময় পদ্ধতির মাধ্যমে খুলনা জেলা পাকিস্তানকে দেওয়া হয় (বর্তমানে বাংলাদেশে) এবং মুর্শিদাবাদকে ভারতবর্ষের অন্তর্ভুক্ত করা হয়।


১৯৪৭ সালের ১৮ ই অগস্ট সকাল ৯টায়, লালগোলার এম.এন.একাডেমীর মাঠে অবস্থিত বট গাছের কাছে জাতীয় পতাকা উত্তোলিত হয়। কারো কারো মতে সেদিন বেলডাঙ্গার গোবিন্দসুন্দরীর স্কুল মাঠে ভারতের তেরঙা পতাকা ওড়ে।



তাই সেই দিনটাকে স্মরণ করে আজকে পতাকা হাতে তুলে নিলাম। গত দুই বছরও হাতে পতাকা তুলে নিয়েছিলাম।আজ আমার কাছে একটাই প্রশ্ন–

এই দিনটাকে স্মরণ করে মুর্শিদাবাদবাসীদের গর্বের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা উচিত নয় ??

(১৮ আগস্ট সালারে আর কেউ পতাকা উত্তোলন করেন না, আমি এটার মাধ্যমে অন্যদের আহবান জানাচ্ছি। আগামী বছর অন্যরা পতাকা তুললে, সে ছবিও পোস্ট করব। তাহলে আগামী বছর কে কে পতাকা তুলবেন ??)